বয়সের ছাপ দূর করার কিছু কার্যকরী উপায়

বয়সের ছাপ দূর করার কিছু কার্যকরী উপায়

বয়সের ছাপ দূর করার কিছু কার্যকরী উপায়

বয়সের সাথে সাথে প্রায়শই আমাদের ত্বকে ভাজ পড়ে এবং বলিরেখা আসে। বয়সের দাগগুলি অত্যন্ত সাধারণ এবং বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকে ভাজ পড়ে। আবার অনেক সময় দেখা যায় অনেকের বয়স ৩০ পার না হতেই ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে যায়। অল্প বয়সে বুড়িয়ে যাওয়ার এই সমস্যায় ভোগেন নারী পুরুষ অনেকেই। এর কারণ অনেক কিছুই হতে পারে। বয়সের দাগগুলি সম্পর্কে আপনার যা যা জানা খুব দরকার তা হল — সেগুলি কী কারণে হয়, কেন ঘটে, বয়সের ছাপ দূর করার উপায় এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুখের ত্বক টানটান করার উপায়।

 

এগুলি প্রায়শই ৫০ বছরের কাছাকাছি বা তার আশেপাশে দেখা যাওয়া শুরু করে, তবে অল্প বয়স্ক লোকেরা যদি রোদে প্রচুর সময় ব্যয় করে তবে বয়সের ছাপ পরতে পারে। বয়সের ছাপ পরার কারণে যখন চেহারা দ্বিগুণ বয়সের দেখায়, তখন মন খারাপ হবে এটাই স্বাভাবিক ব্যাপার। তাই সবাই খুজে বেড়ায় চেহারাকে ফিট রাখার উপায় গুলো। তাই আজকের এই লেখাতে আমরা আলোচনা করব বয়স বেশি দেখানোর কারণ এবং বয়সের ছাপ কমানোর উপায় নিয়ে। সেই সাথে আপনাদের বিস্তারিতভাবে চোখের নিচে বলিরেখা দূর করার উপায় জানাব, যাতে করে আপনাদের সৌন্দর্য চিরস্থায়ী হয়।

বয়সের ছাপ দূর করার উপায়

আপনি সাময়িক ওষুধ বা ক্রিমের সাহায্যে বাড়িতে বসে আপনার বয়সের স্পটগুলি চিকিত্সা করতে পারেন। এই ক্রিমগুলি পেতে আপনার ডাক্তারের কাছ থেকে একটি প্রেসক্রিপশন প্রয়োজন হবে। চিকিতসকরা প্রায়শই নিচের ওষুধ বা ক্রিম গুলো রোগীদের দিয়ে থাকেন:

• হাইড্রোকুইনন (একটি ব্লিচিং ক্রিম)
• হালকা স্টেরয়েড
• রেটিনয়েডস, যেমন ট্র্রেটিনয়াইন (একটি ব্রণ ক্রিম)

এই ওষুধগুলি বেশ কয়েক মাসের ব্যবধানে বয়সের দাগগুলি ম্লান করে ত্বককে সতেজ ও প্রানবন্ত করে তোলে। আপনার সবসময় সানস্ক্রিন প্রয়োগ করা উচিত, বিশেষত যদি আপনাকে দীর্ঘক্ষন রোদের মধ্যে থাকার প্রয়োজন পড়ে। এটি সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মীর ক্ষতি থেকে আপনাকে রক্ষা করবে। সচেতন থাকুন যে এই পণ্যগুলির কয়েকটি আপনার ত্বকে জ্বালা করতে পারে বা চুলকানি ভাব আনতে পারে বিশেষত যেগুলিতে হাইড্রোকুইনোন রয়েছে।

আপনি যদি আপনার বয়সের দাগগুলি থেকে মুক্তি পেতে এই ক্রিম ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ না করেন তবে কিছু প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে এইগুলো করতে পারেন। যেমন-

• দুধের স্বর, ও দুই-তিন ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মুখে দিতে পারেন।
• ডিমের সাদা অংশ, কমলার রস ও মধু একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান। ২০-২৫ মিনিট রেখে কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।
• ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখার জন্যে আলু খুব উপকারী একটি উপাদান। ত্বকে বয়সের ছাপ কমানোর জন্যে প্রতিদিন কমপক্ষে ১৫ মিনিট সময় নিয়ে আলু কুচি দিয়ে তৈরি ফেসমাস্ক অথবা আলুর রস মুখে লাগিয়ে রাখতে পারেন।
• বয়সের ছাপ দূর করতে ত্বকে শসার রস ব্যবহার করুন ।
• টমেটো ও আলু গ্রদ করে ত্বকে ২০-৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন । অনেক ভাল ফলাফল পাবেন ।
• নারিকেল তেল বয়সের ছাপ দূর করায় অসাধারন কাজ করে থাকে । রাতে ঘুমানোর আগে মুখে নারিকেল তেল ব্যবহার করুন ।

অন্যান্য চিকিৎসা পদ্ধতি

আপনার চিকিত্সক আপনার বাড়ির চেয়ে তার নিজস্ব চেম্বারে আপনার বয়সের দাগগুলি দ্রুত দূর করতে সক্ষম হতে পারেন। প্রকৃতপক্ষে বয়সের ছাপ না হওয়ার সঠিক ও কার্যকরী চিকিৎসা এখন আমাদের জানা নেই । অনেকেই এই সমস্যার জন্য চিকিৎসাই বেশি পছন্দ করে থাকে । কারণ আমরা সবাই জানি ঘরোয়া উপায়ের হয়ত কাজ ধীরে ধীরে করে যা চিকিতসায় অনেক দ্রুত হয়ে যায় । বয়সের ছাপ কমানোর জন্য উন্নতমানের প্রযুক্তি সম্পন্ন চিকিৎসার মাধ্যমে মাত্র কিছু মাসের মধ্যে বয়সের ছাপ দূর করা সম্ভব। বয়সের ছাপ দূর করার এমন কিছু বিকল্প পদ্ধতি আপনার জন্য বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হল।

১। লেজার এবং তীব্র স্পন্দিত আলো থেরাপি

এই চিকিত্সাগুলি ত্বকের ক্ষতি না করে মেলানিন তৈরির কোষগুলি (যে কক্ষগুলি বয়স স্পটগুলিকে রঙ করে) ধ্বংস করতে সহায়তা করে। সাধারণত, আপনাকে চিকিত্সার জন্য আপনার ডাক্তারকে দু’বার তিনবার দেখতে হবে। চিকিত্সার কয়েক সপ্তাহ বা মাস পরে, আপনার বয়সের দাগগুলি ম্লান হওয়া শুরু করবে। লেজার এবং তীব্র পালস লাইট থেরাপির কয়েকটি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই লোকেরা তাদের ত্বকের কিছু অস্থায়ী বিবর্ণতা দেখতে পায়। চিকিত্সার পরে, আপনাকে প্রতিদিন সানস্ক্রিন প্রয়োগ করতে হবে।

২। ফ্রিজিং (ক্রিওথেরাপি)

এই চিকিত্সার জন্য, আপনার ডাক্তার তরল নাইট্রোজেন বা আপনার বয়সের স্পটগুলিতে একটি তুলো-টিপড সোয়াব ব্যবহার করে হিমায়িত সমাধান প্রয়োগ করবেন। এটি আপনার বয়সের দাগগুলির ছাপ নষ্ট করবে। আপনার ত্বক নিরাময়ের সাথে সাথে এটি হালকা রঙে দেখা যাবে। এই ধরণের চিকিত্সাটি কেবলমাত্র একটি নির্দিষ্ট বয়সে বা বয়সের একটি ছোট ক্লাস্টারে ব্যবহৃত হয়। এই চিকিত্সার সাহায্যে অস্থায়ী ত্বকে জ্বালা, স্থায়ী দাগ পড়া বা বিবর্ণ হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

৩। ডার্মাব্যাব্রেশন এবং মাইক্রোডার্মাব্র্যাসন

ডার্মাব্র্যাসনে আপনার ত্বকের উপরের পৃষ্ঠের স্তরটিতে দ্রুত গতিযুক্ত ব্রাশের সাহায্যে প্ল্যানিং করে দেয়া হয়। এই চিকিত্সা ত্বকের উপরিভাগ সরিয়ে দেয়, তার জায়গায় ত্বকের একটি নতুন স্তর বাড়তে দেয়। আপনার ফলাফল দেখার জন্য আপনার ডাক্তারকে একাধিকবার এই চিকিত্সা করতে হতে পারে। আপনি এই চিকিত্সার পরে ত্বকে অস্থায়ী লালভাব এবং খসখসে ভাব অনুভব করতে পারেন।

মাইক্রোডার্মাব্রেশন চিকিত্সা ডার্মাব্র্যাশন থেকে কম তীব্র, যা বয়সের দাগগুলি আরও হালকা করতে সহায়তা করে। ফলাফল দেখার জন্য কয়েক মাসের ব্যবধানে এর জন্য ডাক্তারের কাছ থেকে আপনাকে বেশ কয়েকটি বার এটি করানোর প্রয়োজন হতে পারে। সচেতন থাকুন, যদি আপনার মুখে রোসেসিয়া বা ছোট লাল শিরা থাকে তবে মাইক্রোডার্মাব্র্যাসন পদ্ধতি প্রয়োগ করলে আপনার চেহারা আরও খারাপ হয়ে যেতে পারে।

৪। রাসায়নিক খোসা

রাসায়নিক খোসা প্রয়োগের পদ্ধতি বলতে বুঝায় আপনার চিকিত্সক আপনার মুখে অ্যাসিড প্রয়োগ করবেন যা আপনার ত্বকের বহিরাগত স্তরটি থেকে বয়সের দাগ দূর করে দিবে কার্যকর ভাবে। বাইরের স্তরটি খোসা ছাড়লে নতুন ত্বক এটিকে প্রতিস্থাপন করতে বাড়বে।

ফলাফল দেখা শুরু করার আগে আপনার কয়েকটি চিকিত্সার প্রয়োজন হতে পারে। আপনার চিকিত্সার পরে আপনি সম্ভবত কিছু অস্থায়ী লালভাব অনুভব করবেন এবং চিকিত্সা আপনার ত্বকের রঙ স্থায়ীভাবে বদলে দেবে এমন একটি ছোট্ট সম্ভাবনা রয়েছে।

৫। হাইড্রোজেন পারক্সাইড

এটি ক্লিনিকাল ট্রায়ালের পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) দ্বারা সবেমাত্র অনুমোদিত বয়স স্পটগুলির জন্য অফিসে চিকিত্সা। এই চিকিত্সা চলাকালীন, একজন চিকিত্সক প্রতিটি বয়সের স্থানে চার মিনিটের চেয়ে চার বার উচ্চ ঘন ঘন তরল হাইড্রোজেন পারক্সাইড প্রয়োগ করবেন। হাইড্রোজেন পারক্সাইড আশেপাশের ত্বকের ক্ষতি না করে তাদের দ্রবীভূত করতে বয়সের দাগগুলিকে আর্দ্র করতে সহায়তা করে। কোনও বয়সের জায়গা পুরোপুরি দ্রবীভূত করতে কিছু লোকের একাধিক চিকিত্সার প্রয়োজন হয়, বিশেষত যদি এটি বড় বা খুব অন্ধকার থাকে। এই চিকিত্সার সাথে কয়েকটি প্রতিকূল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে, সবচেয়ে সাধারণ হ’ল ত্বকের জ্বালা এবং চুলকানি।

উপসংহারে বলা যায় যে, বয়সের ছাপ দূর করার উপায় হিসেবে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাই সবচেয়ে বেশি কার্যকর। আর কোনও বয়সের ছোঁড়া প্রতিরোধ করতে, দীর্ঘায়িত সূর্যের এক্সপোজার এড়িয়ে চলুন। এবং আপনি যখন রোদে থাকবেন, তখন নিজেকে প্রতিরক্ষামূলক পোশাক, একটি টুপি এবং সানস্ক্রিন দিয়ে সুরক্ষিত করতে ভুলবেন না। আপনার ট্যানিং বিছানাগুলি এড়ানো উচিত, যা আপনার বয়স দাগ হওয়ার ঝুঁকিও বাড়িয়ে তোলে। বয়সের দাগগুলি সম্পূর্ণ নিরীহ। তবে ত্বকের ক্যান্সার থেকে দূরে থাকতে এগুলি নিয়ে সচেতন থাকাই ভালো। যে কারণে, আপনার ত্বকের কোনও নতুন দাগ সম্পর্কে সন্দেহ থাকলে আপনার ডাক্তারকে দেখান যত দ্রুত সম্ভব হয়।